লেবু ক্যান্সার ঠিক করে : বহু প্রচলিত একটি দাবি । কিছু সত্য, কিছু অতিরঞ্জনা

Published on:

সারমর্ম

Fact-Check-Mostly-False-Stamp

“লেবু (সাইট্রাস জাতীয় ফল ) ক্যান্সার কোষকে মেরে ফেলার এক অলৌকিক ক্ষমতা রাখে | এটি কেমোথেরাপির চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী “- এটি একটি বিশেষ দাবি যা প্রতি কয়েক মাস পরে একাধিক উত্স থেকে সোশ্যাল মিডিয়াতে জেগে ওঠে। এইরকম অনেক বার্তা বিভিন্ন সময়ে ইমেল, ফোরাম পোস্ট এবং হোয়াটসঅ্যাপ বার্তাগুলি দ্বারা শেয়ার করা হয়েছে। এইরকমই একটি রিসেন্ট সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট দাবি করে ‘ইনস্টিটিউট অফ হেলথ সায়েন্সেস’ থেকে জানানো হয়েছে ক্যান্সারের নিরাময়ের জন্য লেবু কেমোথেরাপির থেকে বেশি কার্যকরী ।
আমরা তদন্ত করে দেখেছি যে বিভিন্ন গবেষণাতে প্রমাণিত হয়েছে যে লেবু (সিট্রাস জুস) ক্যান্সারের উপর উপকারী প্রভাব ফেলেছে, কিন্তু লেবুর রসকে কেমোথেরাপির থেকে বেশি কার্যকরী দাবি করা অত্যন্ত অতিরঞ্জিত। আমরা এটিকে বেশিরভাগ মিথ্যা (মোস্টলী ফলস) হিসাবে চিহ্নিত করছি ।

দাবি

ফেসবুক পোস্ট এ করা দাবির একটি অংশ ট্রান্সলেট করলে এইরকম দাঁড়ায়:
“লেবু (সাইট্রাস) ক্যান্সার কোষকে মেরে ফেলার এক অলৌকিক পণ্য product এটি কেমোথেরাপির চেয়ে 10,000 গুণ বেশি শক্তিশালী ” দাবির একটি স্ন্যাপশট নীচে দেওয়া হয়েছে এবং সংরক্ষণাগারিত সংস্করণটি এখানে দেখা যাবে।

একইরকম অন্য একটা পোস্ট ও দেখতে পাওয়া যায় যাতে ডাক্তার বা গবেষণাগারের নাম বদলে বাকি মেসেজটাকে একইরকম রাখা হয়েছে । সেইরকম একটি মেসেজের সংরক্ষণাগারিত সংস্করণটি এখানে দেখা যাবে

অনুরূপ প্রকৃতির একটি দাবি, অন্য কোনও ডাক্তার / গবেষণা ইনস্টিটিউটকে দেওয়া কৃতিত্বের সাথে সামাজিক মিডিয়াতেও জনপ্রিয়। এরকম একটি পোস্টের সংরক্ষণাগারিত সংস্করণটি এখানে।

সত্যানুন্ধান

বাল্টিমোরে কি ‘ইনস্টিটিউট অফ হেলথ সায়েন্সেস’ রয়েছে? তারা কি সত্যিই এ জাতীয় কোনো বিবৃতি জারি করেছে?

বাল্টিমোরে একটি হেলথ সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট রয়েছে (আমরা ধরে নিচ্ছি যে এই একই সংগঠনটির সম্মন্ধে বার্তায় উল্লেখ করা হয়েছে যেহেতু এই অঞ্চলে এইরকম নামের আর কোনো সংস্থা নেই)।

হেলথ সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট জানিয়েছে তারা এইরকম কোনো বিবৃতি জারি করেনি ।

একাধিক মিডিয়া হাউসকে পাঠানো ইমেল প্রতিক্রিয়ায় ইনস্টিটিউট স্পষ্ট জানিয়েছে, “প্রশ্নযুক্ত ইমেল এবং তথ্য স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট থেকে আসে নি। …. এটি ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য মিথ্যা বা অপরীক্ষিত একটি চিকিত্সা পদ্ধতির পরামর্শ দিচ্ছে। সম্ভবত সাইট্রাস ফলগুলিতে ক্যান্সারবিরোধী কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে বা নেই (আমি এ বিষয়ে কথা বলার যোগ্য নই) তবে একটি বিষয় যা আমি নিশ্চিতভাবে জানি সেটি হলো হেলথ সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট এই তথ্য প্রকাশ করেনি। এই ইমেল বা এতে থাকা তথ্যগুলির সাথে আমাদের কোনও সম্পর্ক নেই।

[“The email and information in question did not come from the Health Sciences Institute. Whoever started this scam email did use some of our published material – which had nothing to do with lemons in any way – and inserted the information about lemons. It is erroneous and has caused us a great deal of trouble. However, most troubling is that it is giving false or un-tested medical advice to people suffering with cancer. Perhaps citrus fruits have some anti-cancer properties or perhaps they don’t (I’m not qualified to speak on that), but the one thing I know for certain is the provided “source” of this information – the Health Sciences Institute – did NOT publish this information. We had nothing to do with this email or the information it contains.”]

লেবু জল বা গরম লেবু জল ক্যান্সার নিরাময় করতে পারে?

ক্যান্সার স্পেশালিস্ট ডাক্তার মনীশ সিংহলকে জিজ্ঞেস করা হলে উনি কিছুটা ব্যাঙ্গাত্মক ভাবেই বলেন “গরম জল দিয়ে লেবুর রস পান করা ভাল অভ্যাস। তবে যদি কেবল লেবু জল পান করে ক্যান্সার নিরাময় হয়ে যায় বা কেমোথেরাপির রিপ্লেস করে দেওয়া যায়, তবে তো আমাদের আর ক্যান্সার নিয়ে এত গবেষণা করারই কোনো দরকার নেই । ”

যদি বিশ্ব জুড়ে অনেক রিসার্চ করা হয়েছে এর উপর । কোনটা লেবুর উপর তো কোনটা অরেঞ্জ জুস এর উপর । এরকম অনেক রিসার্চ এই দেখা গেছে যে লেবু (সাইট্রাস জাতীয় ফল) এর রস এ ক্যান্সার প্রতিরোধক কিছু এলিমেন্টস আছে । যদিও এর উপর গবেষণা এখনো চলছে । (দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে)

ডাক্তার সিংহল বলেন, “লেবুর জল পান করা ভাল অভ্যাস। এটি আপনার দেহের ক্ষতি করতে পারে না। কিন্তু এটি কেমোথেরাপির চিকিত্সা প্রতিস্থাপন করতে পারে বা ক্যান্সার পুরোপুরি নিরাময় করতে পারে তা ভেবে বিপজ্জনক অতিরঞ্জিততা “

Disclaimer: Medical Science is an ever evolving field. We strive to keep this page updated. In case you notice any discrepancy in the content, please inform us at [email protected]. You can futher read our Correction Policy here. Never disregard professional medical advice or delay seeking medical treatment because of something you have read on or accessed through this website or it's social media channels. Read our Full Disclaimer Here for further information.

Disclaimer
Medical Science is an ever evolving field. We strive to keep this page updated. In case you notice any discrepancy in the content, please inform us at [email protected]. You can further read our Correction Policy here. Never disregard professional medical advice or delay seeking medical treatment because of something you have read on or accessed through this website or it's social media channels. Read our Full Disclaimer Here for further information.

151,120FansLike
1,127FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

READ MORE

Subscribe to our newsletter

Stay updated about fake news trending on social media, health tips, diet tips, Q&A and videos - all about health